“আমারো মণ আ শইলের পাশে
আইসো না গো তোমরা
তোমাগো ঐ রাঙা কালা কালি
লাগবো না মোর শইলডায়।”

অতি নগণ্যমানের লিখনি দ্বারাই প্রবেশ করি সাহিত্যের  অন্যতম শাখায়। শখের বশে একসময় কবিতা লিখা হলেও এখন তা পুরোদস্তুর অভ্যাস এ পরিণত হয়েছে। একের পর এক কবিতা বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমের গ্রুপ এবং ওয়েবসাইট এ প্রকাশ পায়। কিছু নগণ্য ভালোবাসা কুড়াই। সাথে পেতে থাকি অনেক সমালোচনার তকমা। সোস্যাল সাইট এ ইনবক্স এ হরেক মানুষের ট্রল নিয়ে এখনো চালিয়ে যাচ্ছি লিখা।থামাতে পারবে না তাদের ট্রলিং আমাকে। আমি চালিয়ে যাব লিখা।থামাব না,থামবেনা।

চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার এক অজপাড়া গাঁ এ আমার জন্ম।সময়টা ২০০৪ সাল।এক দুপুর রাতে আমি এই অচেনা পৃথিবীতে জন্ম নি।কদম রাখি নিষ্পাপ হয়ে।সময় বেড়ে চলল বাড়তে থাকি আমি।চঞ্চলতায় ভরা এই দেহটায় শহুরে আবেশ জড়াই।পড়ালেখা নামক এক আজব বিবিধ এর সান্নিধ্য পেয়ে আমি শিখতে থাকি।পড়তে থাকি।মাঝেমাঝে এই আজব জিনিষটারে বড্ড কেলাইতে ইচ্ছা করে।তবুও পড়তে হয়। চাকুরী না পেলে যে পেট চলবে না।

২০১৪ সালে মধ্যম বাকলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষার স্তর সম্পুর্ণ করি। ২০১৭ সালে পূর্ব বাকলিয়া সিটি কর্পোরেশন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে নিম্ন মাধ্যমিক এবং সরকারী মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০২০ সালে মাধ্যমিক পাশ করি। পরের ধাপ চলমান চট্টগ্রাম মডেল সরকারি কলেজ এর সাথে।

চঞ্চল প্রকৃতির হলেও আমি আমার ব্যক্তিত্বকে বড্ড ভালবাসি।সারাদিন টই টই করে ঘুরে বেড়াতে বড্ড ভাল্লাগে।কখনো এই এলাকা তো কখনো ঐ এলাকা। প্রকৃতির আসল সৌন্দর্য উপভোগ করতে আমি ব্যস্ত থাকি।খুজে বেড়াই একা থাকার আনন্দ। তবে বন্ধুবান্ধব এ আমি ভরপুর।একেকটা যেন একেক রত্ন।তার মাঝে আছে কিছু প্রাণী। যাদের কাজ শুধু আমারে জ্বালানো। প্রাণো হতে যা পেয়েছি তা ভুলার নয়।প্রতিটা স্টেপ এ তার ছোঁয়া রয়েছে।হয়ত সম্পর্ক টা কয়েকমাস আগে শুরু তবে তার বন্ধুত্বসুলভ আচরণ আমায় আকৃষ্ট করেছে।পেয়ে গেছে আমার ভিন্ন একটা স্থান।সব কাজেই যারে লাগে আমার তারে কি আর ছাড়া যায়?

প্রেম আসেনি। হয়তো এসে অপেক্ষা করেছে আর আমি সাড়া দিইনি।মা-বাবা বারণ করেছে।আসতে দিও না তারে।তাই আসেনি। প্রেম এ পড়া বারণ।তবুও নিত্য পড়ছি। আসবে যাবে।আর ক্রাশ এর লিস্ট বড় হবে।

আমার ইচ্ছা একদিন এই বাংলা হবে সবচেয়ে সুখি রাষ্ট্র।কোনো পথশিশু থাকবে না।কেউ আর রাস্তায় ঘুমাবে না।শীতের রাতে কেউ লেপহীন রইবে না।বেকারত্ব নামক বোঝা একদিন দূর হবে।স্বাবলম্বিতায় ভরপুর রইবে এই বাংলা।শেষ ইচ্ছা বলতে কোনো কিছু থাকলে তবে এইটাই শেষ ইচ্ছা।

ঘুমাবে না কেউ ফুটপাত এ
রইবে সবাই নিজ ঘরে
কর্মহীনতায় হতাশ হবে না কেউ
স্বাবলম্বীতায় সুখী হবে।