বড় পর্তুলিকা বা দূর্বাফুল বা টাইম ফুলঃ

বৈজ্ঞানিক নামঃ Portulaca grandiflora Hook.
সমনামঃ Portalaca megalantha steud(1841)
        Portulaca canerdocilensis Gill,ex Rohrb.(1872)

জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণিবিন্যাসঃ

Kingdom : Plantae
clade   : Tracheophytes
clade   : Angiosperms
clade   : Eudicots
Order  : Caryophyllales
Family  : Portulacaceae
Genus  : Portulaca
Species : P. grandiflora

ভূমিকাঃ
Portulaca grandiflora হচ্ছে Portulacaceae পরিবারের Portulaca গণের একটি সপুষ্পক ঘাসজাতীয় বীরুৎ।এটি আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল এর দক্ষিণাঞ্চল,উরুগুয়ে এবং প্রায় সময়ে বাগানে চাষ করা হয়।এর আরো অনেক নাম আছে।এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য রোজ মস(rose moss), এগারটার ফুল(eleven o’clock), মেক্সিকান গোলাপ(Mexican rose), সূর্য গোলাপ(sun rose), পাথর গোলাপ(rock rose),মস রোজ পার্সলে(moss-rose purslane)।
এটিকে বাংলাদেশে টাইম ফুল,বড় পর্তুলিকা,দূর্বাফুল নামেও ডাকা হয়। এটিকে বাংলাদেশে আলংকারিক উদ্ভিদ হিসেবে বাগানে বা গৃহে চাষাবাদ করা হয়। এই বীরুৎটি বাড়ির বা বাগানের শোভাবর্ধন করে মূলত সারাদিন ফুটে থাকে সন্ধ্যার পরে মুড়িয়ে যায়। বাসা বাড়িতে ঘাসের মত বিছিয়ে বা মাটিকে ঢেকে রাখার জন্য লাগানো হয়।
পাকিস্তানে একে ‘গুল দোপেহেরি’ ডাকা হয়।যার অর্থ বিকেল বেলার ফুল।এছাড়াও স্থানভেদে একে ভিন্ন নামেও ডাকা হয়।

বর্ণনাঃ
এটি বর্ষজীবী বা বহুবর্ষজীবী বীরুৎ।২০ সে.মি. পর্যন্ত লম্বা হতে পারে,খাড়া বা ভূশায়ী এবং ঊর্ধ্ব শাখা বিশিষ্ট, পর্ব থেকে এদের মূল গজায়।এদের কান্ড এবং শাখা-প্রশাখা সরস,মসৃণ,সবুজ থেকে বেগুনি-সবুজ বর্ণের। পাতা একান্তর বা অনিয়মিত ভাবে বিস্তৃত।প্রায় অবৃন্তক, অর্ধবেলনাকার বা অর্ধবৃত্তাকার, রৈখিকার,তীক্ষ্ণাগ্র, দৈর্ঘ্য ৮-৩০মি.মি. ও প্রস্থ ২-৩ মি.মি. সরস,মসৃণ অখন্ড।পাতার কক্ষে কিছু সংখ্যক উপপত্রীয় রোম বর্তমান যা ২-৮মি.মি. লম্বা এবং সাদা রঙের।
পুষ্পমঞ্জরি ১-৩টি পুষ্পবিশিষ্ট কলি থাকে,অবৃন্তক গুচ্ছ ঘন রোম এবং কোনোটির ৫-৮টি পত্রবিশিষ্ট মঞ্জরীপত্রাবরণ কর্তৃক আচ্ছাদিত।ফুল বড় আকারের সুদৃশ্য,অবৃন্তক।বিভিন্ন রঙের ফুল দেখা যায়।যেমনঃ গোলাপী,সাদা,রক্তলাল,বেগুনি, হলুদ প্রভৃতি।ফুলের আকার আড়াআড়ি ভাবে ২-৫ সে.মি.।
বৃত্যংশ দুটি। কিছুটা অসমান,পাদদেশে সংযুক্ত হয়ে একটি খাটো নল গঠন করে প্রশস্ত,ডিম্বাকার,৬-৭ মি.মি. লম্বা,৩-৪ মি.মি. প্রশস্ত,শীর্ষ কিছুটা হুড আকৃতির,তীক্ষা।পাপড়ি ৫টি থেকে থেকে অসংখ্য, পাদদেশে যুক্ত,বিডিম্বাকার,দৈর্ঘ্য ২০মি.মি. ও প্রস্থ ১৪ মি.মি.(প্রায়)।
গর্ভপত্র ৫ টি;যুক্ত গর্ভপত্রী,গর্ভাশয় ডিম্বাকার,গর্ভদন্ড ৬-৭মি.মি. লম্বা;৫টি ভাগে বিভক্ত।গর্ভমুন্ড ৫ টি রৈখিকার,২-৩মি.মি.লম্বা, নিচের দিকে বাঁকা।ক্যাপসিউল দীর্ঘায়ত, স্থুলগ্র,৫মি.মি. লম্বা ৩মি.মি. ব্যাসবিশিষ্ট।
ক্রোমোসোম সংখ্যাঃ 2n= ১০,১৮,৩৬(Fedrov ১৯৬৯)

আবাসস্থল ও চাষাবাদঃ
বেলে-পলিমাটিতে ভাল জন্মে।এই ফুলের চাষের জন্য পর্যাপ্ত সূর্যালোকের প্রয়োজন এবং মাটিতে দরকার পরিমিত পানি।এই ফুলের বীজ বা শাখা কেটে মাটিতে পুঁতে দিলেই নতুন চারা হয়।এই ঘাসের বীজ ক্ষুদ্র,চেপ্টা,ধূসর বা ধূসরাভ কালো।

বিস্তৃতিঃ
এই ফুল বিশ্বের গ্রীষ্ম উউষ্ণমণ্ডল, অর্ধগ্রীষ্ণমন্ডল এবং তুলনামূলক উষ্ণ নাতিশীতোষ্ণ মন্ডলে জন্মায়।বাংলাদেশে এটি অধিকাংশ বাগানে শোভাবর্ধক বীরুৎ হিসেবে ব্যাপকভাবে রোপণ করা হয়।

অর্থনৈতিক ব্যবহার ও গুরুত্বঃ
Portulaca grandiflora প্রধানত শোভাবর্ধন হিসেবে মূল্যবান এবং এটির বিবিধ বর্ণের একক এবং দ্বৈতপুষ্পের জন্য।বর্তমানে এই ফুল চাষ করে অনেকে স্বাবলম্বী হচ্ছেন।

ভারতে পর্তুলিকা
পাকিস্তানে সাদা রঙের পর্তুলিকা

Categories: ব্লগ

0 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *